নাজমুস সাকিব রহমান

লাঞ্চ

আম্মা বলল, খালি পেটে বিপ্লব হয় না।


গোসল 

কিছু একটা লেখার জন্যে গোসল করি না কতদিন; কাটি না নখ, চুল, যৎসামান্য দাঁড়ি। আরও যা যা করার—তাও করছি। কাপড় ধোয়া বন্ধ। কিছুদিন এক চোপড়ে থাকছি। বিছানা ঝাড়ু দেয়া ভুলে গেছি। প্যান্টের সাথে উঠে আসা বালি নিয়ে থাকছি। পত্রিকার স্তুপ, নাপড়া বই—এসব জমা হচ্ছে বালিশের পাশে। এ্যাশট্রে উপচে পড়ছে অনেক না লেখার কাছে। কাগজ, কলম, অভিধান, সিগারেট, লাইটার সব রেডি। এখন একটা ঘনঘোরের অপেক্ষা করছি—

রুমভর্তি মেঘ। 
কাগজের ওপর
বৃষ্টি হচ্ছে। 
চুলায় পানি গরম।...

এখন একটা কবিতা হয়ে গেলে গোসলের পর চা খাবো। আজকাল এভাবেই নিজের শরীর ধুচ্ছি।


রাউলা 

এই যে আপনার বিয়েতে আসতে পারিনি, তাই উপহার হিসাবে একটা বাক্স নিয়ে এলাম। এটা দেখে খালি মনে হতে পারে। এটা খালিই—আমি স্রেফ বাতাস ভরে দিয়েছিলাম। আপনি চাইলে এখানে যা খুশি রাখতে পারেন। চাইলে স্বাধীনতা পেয়ে একটা প্রশ্নও ছুঁড়ে দিতে পারেন। যাকে বিয়ের দাওয়াত দেয়া হয়নি, সে কীভাবে আপনার বিয়েতে আসবে? খাবে-দাবে, ছবি তুলবে? ম্যাস কমিউনিকেশনে এগুলা হিউম্যান ইন্টারেস্ট। তাই আগেই জেনে রাখুন—দাওয়াত ছাড়াও বিয়ে, খৎনা এসব অনুষ্ঠানে যাওয়া যায়। না হলে, আপনি যে পৃথিবীতে এসেছেন, কেউ কি আপনাকে দাওয়াত দিয়ে এনেছিল?
Advertisements

মন্তব্য করুন

Please log in using one of these methods to post your comment:

WordPress.com Logo

You are commenting using your WordPress.com account. Log Out /  পরিবর্তন )

Google photo

You are commenting using your Google account. Log Out /  পরিবর্তন )

Twitter picture

You are commenting using your Twitter account. Log Out /  পরিবর্তন )

Facebook photo

You are commenting using your Facebook account. Log Out /  পরিবর্তন )

Connecting to %s